শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম ::
২০ জানুয়ারির মধ্যে সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তি শেষ করার নির্দেশ বিদেশি শিক্ষর্থীদের আগ্রহ বেসরকারিতে বেশি, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কম দেশে করোনায় আট মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু কম মূল্যে কাপড় আমদানি দেখিয়ে জালিয়াতি করে বিপুল রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে অসাধু আমদানিকারকরা সব সড়ক-মহাসড়কে অপরিকল্পিত গতিরোধক দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়াচ্ছে নতুন দিনের কবিতা-কথায় ৮০ তম সাউন্ডবাংলা-পল্টনড্ডা দেশে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা সোয়া ৫ লাখ ছাড়াল বিদেশে ফ্ল্যাট কেনা বাংলাদেশিদের তালিকা চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দুদকের চিঠি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জন্য আসছে ১০ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দাতাদের অনুদান কমে যাওয়ায় এনজিও কার্যক্রমে বিপর্যয়ের আশঙ্কা বাড়ছে
খুলে দেয়া হলো বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো

খুলে দেয়া হলো বান্দরবানের পর্যটনকেন্দ্রগুলো

বি নিউজ : করোনার প্রাদুর্ভাবে বন্ধ হওয়া পর্যটনকেন্দ্র আজ শুক্রবার সকাল থেকে খুলে দিয়েছে বান্দরবান জেলা প্রশাসন। মুখে মাস্ক লাগিয়ে, হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে টিকিট কেটে একে একে প্রবেশ করেন পর্যটকরা।

আজ শুক্রবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বান্দরবানের নীলাচলে সকাল থেকে আসতে শুরু করেছেন পর্যটকরা। মুখে মাস্ক লাগিয়ে, হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে টিকিট কেটে একে একে প্রবেশ করছেন পর্যটকরা। ছুটির দিন হলেও সকালে পর্যটকের তেমন ভিড় দেখা যায়নি। অনেক পর্যটক পরিবার, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে পর্যটনকেন্দ্রে এসেছেন। কেউ প্রাকৃতিক দৃশ্যটিকে নিজের ক্যামরায় বন্দি করছেন। কেউবা দোলনায় দুলছেন। নীলাচল পর্যটনকেন্দ্রের টিকিট কালেক্টর দিলীপ বড়ুয়া জানান, সকাল থেকে ৭০টি টিকিট বিক্রি হয়েছে। অনেকে মাস্ক পরে পর্যটনকেন্দ্রে প্রবেশ করছেন। বিকাল থেকে পর্যটকের কিছুটা ভিড় দেখা যেতে পারে। লকডাউন শেষে ঢাকার মিরপুর থেকে আসা পর্যটক শাহনাজ আকতার জানান, করোনার লকডাউনের পর সরকার দেশের পর্যটনকেন্দ্রগুলো খুলে দিয়েছে। এখানে প্রথম এসেছি। দেশের মধ্যে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ভরপুর এমন একটা জায়গা আছে এখানে না আসলে জানতে পারতাম না। ঢাকা থেকে আসা আরেক পর্যটক শাহাদাত হোসেন জানান, করোনায় ঢাকায় শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থায় ছিলাম। এখানে এসে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছি। অনেক সুন্দর জায়গা। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শামীম হোসেন জানিয়েছেন, আজ শুক্রবার সকাল থেকে পর্যটনকেন্দ্র ও হোটেল মোটেল খুলে দেয়া হয়েছে। পর্যটকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটনকেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। করোনা প্রতিরোধে গত ১৮ মার্চ থেকে জেলার সব পর্যটনকেন্দ্র অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয় জেলা প্রশাসন। জেলায় ৬০টি হোটেল-মোটেল রয়েছে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018-20
Design & Developed BY Md Taher