রবিবার, ০৫ Jul ২০২০, ১২:৫৮ অপরাহ্ন

ঝুঁকি আর শঙ্কার মধ্যেই খুলতে শুরু করেছে সবকিছু

ঝুঁকি আর শঙ্কার মধ্যেই খুলতে শুরু করেছে সবকিছু

বি নিউজ : করোনাভাইরাস মহামারীর বিস্তার রোধে টানা ৬৬ দিনের ‘সাধারণ ছুটি’ শেষ হয় গত শনিবার। দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর ঝুঁকি আর শঙ্কার মধ্যেই খুলতে শুরু করেছে সব; মানুষকে স্বাভাবিক কর্মকান্ডে ফিরতে হচ্ছে নতুন বাস্তবতায় অভ্যস্ত হওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়ে।

এখন সবাইকে বাইরে বের হতে হবে স্বাভাবিক সময়ের মতই, কিন্তু সর্বক্ষণ সচেতন থাকতে হবে নিজে সংক্রমণ থেকে বাঁচতে এবং অন্যকে বাঁচাতে। দূরত্ব রক্ষা করে চলা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধিকে করে নিতে হবে জীবনের সঙ্গী। আজ রোববার থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে সব সরকারি অফিস; সারাদেশে ট্রেন ও লঞ্চ চলাচলও শুরু হয়েছে। ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়ে দূরপাল্লার বাস-মিনিবাস চলাচল শুরু হচ্ছে আজ সোমবার থেকে। বিপণি বিতান আর দোকান-পাট খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল রোজার মধ্যেই। তবে সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্কুল কলেজ এই মুহুর্তে খুলছে না। গত ২৬ মার্চ থেকে চলা সাধারণ ছুটির মেয়াদ না বাড়িয়ে ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে অফিস খোলার সিদ্ধান্ত জানায় সরকার। এই সময় স্বাস্থ্য সুরক্ষায় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ থেকে জারিকৃত ১৩ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণের পাশাপাশি সবাইকে অবশ্যই মাস্ক পরে অফিসে আসতে বলা হয়েছে। তবে বয়স্ক, অসুস্থ ও সন্তান সম্ভবাদের এ সময় অফিসে আসা মানা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন বিভাগে কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল হাই বলেন, আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রায় সবাই অফিসে এসেছেন। আমিও অফিসের একটা কাজে মন্ত্রণালয়ে আছি। কাজ শেষ করে অফিসে চলে যাব। জরুরি খাত হিসেবে ব্যাংকগুলো আগে থেকেই সীমিত পরিসরে খোলা ছিল। আজ রোববার থেকে আগের সূচিতে পুরোদমে কাজ শুরু হয়েছে। রাষ্ট্রায়ত্ত একটি ব্যাংকের কর্মকর্তা জাকারিয়া হোসেন বলেন, আমরা ব্যাংকাররা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছি। এ কারণে ব্যাংকে আসতে ভয় লাগে। কিন্তু কিছু করার নেই। সরকারি নির্দেশ তো মানতেই হবে। বিআরটিসি ছাড়া অন্য বাস বা মিনিবাস আজ রোববার না নামলেও সকালে মিরপুর, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, তেজগাঁও এলাকা ঘুরে সড়কে প্রচুর যানবাহন চলতে দেখা গেছে। ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার উপকরণ পরে সড়কে দায়িত্ব পালন করছেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। লকডাউন শুরুর হওয়ার পর সড়কের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের যেসব চেকপোস্ট বসানো হয়েছিল, সেগুলো তুলে নেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন ট্রাফিক সিগন্যালে যানবাহনের ভিড় দেখা গেছে।

আজ রোববার সকালে ঢাকা সদরঘাট থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিআরডব্লিউটিএর পরিবহন পরিদর্শক দীনেশ কুমার সাহা। বলেন, সকাল পৌনে ৭টায় সোনারতরী-৪ নামে একটি লঞ্চ চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে। প্রতিদিন প্রায় আশিটি লঞ্চ সদরঘাট থেকে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন রুটে ছেড়ে যায়। তবে যাত্রীদের ভিড় স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে কম। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফুল আলম বলেন, ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল রোববার থেকে ট্রেন শিডিউল অনুযায়ী চলাচল শুরু করেছে। ট্রেনগুলো ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করেছে। আপাতত চট্টগ্রাম-ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে সুর্বণ এক্সপ্রেস ও সোনার বাংলা এক্সপ্রেস, সিলেট-ঢাকা-সিলেট রুটে কালনী এক্সপ্রেস, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, লালমনি এক্সপ্রেস, উদয়ন/পাহাড়িকা এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস চলাচল শুরু হচ্ছে বলে জানান তিনি। কমলাপুর স্টেশনের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম জানান, আপাতত কেবল আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। সেজন্য অনলাইনে টিকেট বিক্রি হচ্ছে গত শনিবার থেকে। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে কাউন্টার থেকে কোনো টিকেট দেওয়া হবে না। যাত্রীদের কেউ অনলাইনে টিকেট নেওয়ার পর প্রিন্ট চাইলে তাদের জন্য একটা কাউন্টার খোলা হবে। প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেনে চড়তে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লাভস ছাড়া উঠতে দেওয়া হবে না। ট্রেনে ওঠার আগে স্ক্যানার দিয়ে তাপমাত্রা মাপা হবে। এ ছাড়া ট্রেনের প্রতিটি কামরা জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা করেছি।

গত শনিবার সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী সুজন ইসলাম সুজন জানিয়েছিলেন, ৩ জুন আরও ১১ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন চলা শুরু করবে। তিস্তা এক্সপ্রেস, বেনাপোল এক্সপ্রেস, নীলসাগর এক্সপ্রেস, রূপসা এক্সপ্রেস, কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, মধুমতি এক্সপ্রেস, মেঘনা এক্সপ্রেস, কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস, উপকূল এক্সপ্রেস, ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস, কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস চালু হবে তখন। বিআরটিসির কল্যাণপুর ডিপোর ব্যবস্থাপক মো. শহীদুল ইসলাম আজ রোববার সকালে বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন ডিপো থেকে স্টাফ বাস চলাচল শুরু হয়েছে। অনেক ডিপো থেকেই বাস বের হয়েছে অফিসগামী যাত্রীদের নিতে। আমার ডিপোর কিছু স্টাফ বাস সচিবালয়ের কর্মচারীদের পরিবহন করে। এগুলো বের হবে দুপুরের পর।

বিআরটিসির জোয়ার সাহারা ডিপোর একটি বাসের চালক মিজানুর রহমান বলেন, কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্যবিধি মানতে সব ব্যবস্থা নেবে বলে আশা করছেন তিনি। এতদিন ঘরবন্দি ছিলাম। আশা করি ভালোভাবে সবকিছু ফিরে আসবে। একটু পর অফিসে যাব, সেখানে গেলে বুঝতে পারব আমাদের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে কি না। এটা খুব জরুরি। রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড এলাকার বাসিন্দা ওষুধ ব্যবসায়ী মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, সাধারণ ছুটি তুলে দেওয়ায় অর্থনীতির চাকা হয়ত কিছুটা সচল হবে, তবে মহামারী আরও ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা কাজ করছে তার মনে। আমাদের দেশের মানুষ এমনিতেই নিয়ম মানে না। বলা হয়েছে নিয়ম মেনে করা হবে, কিন্তু লকডাউন চলার সময়ই অনেকে নিয়ম মানেনি। এখন এভাবে আরও খুলে দিলে মহামারী আরও বেড়ে যাবে। এটা যে কঠোরভাবে মানা হবে সে বিষয়টা নিশ্চিত করবে কে? রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে কাপড় বিক্রি করেন নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার শামসুল হক।

তিনি বলেন, লকডাউনে জীবন ও জীবিকা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ছিলেন তিনি। সীমিত পরিসরে সব খোা শুরু করায় আবার হয়ত ব্যবসা চালু হবে তার। পরিবার নিয়ে খুব কষ্ট করছি এই দুই মাস। অহন চালু হইল, কিছু কাপড় কিন্না আবার বাইর হমু। সাধারণ ছুটি শেষ হওয়ার পর সব সরকারি হাসতাপালের বহির্বিভাগও পুরো সময় চালু রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। গত শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, এখন থেকে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত হাসপাতালের বহির্বিভাগ খোলা থাকবে। কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে সতর্কতা হিসেবে গত ৪ এপ্রিল সব সরকারি হাসপাতালের বহির্বিভাগে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত সীমিত পরিসরে চিকিৎসা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। অফিস আদালত চালু হওয়ার পর সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলার নির্দেশনা এসেছে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে। বাইরে চলাচলের সময় মুখে মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি না মানলে আইনি ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। লকডাউন শেষে অফিস খোলার আগের দিন গত শনিবার অধিদপ্তরের এক আদেশে ‘অতি জরুরি প্রয়োজন’ ছাড়া রাত ৮টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত বাড়ির বাইরে যেতেও নিষেধ করা হয়েছে। কোভিড-১৯ সংক্রমণে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬১০ জন। এ পর্যন্ত ৪৪ হাজার ৬৮৪ জন রোগী শনাক্ত হওয়ার তথ্য সরকারিভাবে জানানো হলেও অনেকেই এখনও পরীক্ষার বাইরে রয়ে গেছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 bnewsbd24.Com
Design & Developed BY Md Taher