বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম ::
করোনায় মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়াল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লাখ লাখ কৃষককে বিনামূল্যে বীজ-সার দেয়ার উদ্যোগ অবৈধভাবে বসবাসকারী শত শত বিদেশীর তালিকা করে আটকের চেষ্টা করছে পুলিশ ত্রাণ তহবিলের জন্য ১৬৫ কোটি টাকা অনুদান গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী বিএনপির আন্দোলনের গর্জনই শুধু শোনা যায়, বর্ষণ দেখা যায় না : ওবায়দুল কাদের দেশে করোনায় আরো ২৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪৪ ওয়াসার এমডিকে পুনরায় নিয়োগ না দেয়ার আহ্বান ক্যাবের শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, প্রস্তুতি নিন: প্রধানমন্ত্রী মসজিদে বিস্ফোরণ : বিদ্যুৎ মিস্ত্রিকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি টানা লোকসান এড়াতে বন্ধ করে দেয়া হতে পারে দেশের চিনিকলগুলো
করোনা সঙ্কটে শ্রমিক স্বল্পতা -ধান কাটা সমস্যার দ্রুত সমাধান হোক

করোনা সঙ্কটে শ্রমিক স্বল্পতা -ধান কাটা সমস্যার দ্রুত সমাধান হোক

করোনা পরিস্থিতিতে জাতি এক ধরণের ক্রান্তিকাল পার করছেন। এই পরিস্থিতিতে মাঠের বেশিরভাগ কৃষকের ধান পেকে গেছে। শ্রমিক সংকটে চাষীরা ধান কেটে ঘরে ওঠাতে পারছেন না। এমতাবস্থায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা কৃষকদের ধান কেটে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। ধান মাড়াই করে কৃষকের ঘরে তুলেও দিচ্ছেন তারা। করোনাভাইরাসের সংকট নিরসনে বিভিন্ন দল বিশেষ করে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা দলীয় বা ব্যক্তিগত উদ্যোগে গৃহবন্দি থাকা কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি কৃষকের ধান কেটে দেয়ার যে উদ্যোগ নিচ্ছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। তবে এটি যেন শুধু লোক দেখানোর পর্যায়ে পড়ে না থাকে।

শ্রমিক স্বল্পতা ও আগাম বন্যার আশঙ্কায় বোরো ধান কাটা নিয়ে সবচেয়ে বিপাকে পড়েছেন হাওরের কৃষকরা। প্রতিবছর এ মৌসুমে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার শ্রমিক হাওর এলাকায় ধান কাটতে এলেও এবার করোনা আতঙ্কের কারণে শ্রমিক কম আসছেন। ফলে ধানকাটা নিয়ে অনিশ্চিয়তায় পড়েছেন কৃষক।

কৃষিবিভাগ বলছে, হাওরের ফসল কাটতে মে মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগবে। আর পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, এ মাসের শেষ দিকে আগাম বন্যা হতে পারে। ফলে ফসলহানির আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন কৃষক। যদিও ধান কাটার জন্য স্থানীয় বালি, পাথর শ্রমিক ও অন্যান্য শ্রমিক ধান কাটায় যোগ দিয়েছেন। এছাড়া সরকারের বিশেষ উদ্যোগে বাইরের জেলা থেকে শ্রমিক নিয়ে আসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তারা স্বাস্থ্য বিধি মেনে হাওরের ধান কাটবেন। এছাড়া দলের নেতাকর্মীরা স্বেচ্ছাশ্রমে গরীব, হত দরিদ্র ও বর্গা চাষীদের পাকা ধান কেটে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। তবে এ ধান কাটা দু’একজন কৃষকের দু’একটা জমিতে ধান কেটে দিয়ে ফটোসেশনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলে তাতে উপকার তো হবেই না, বরং কৃষকদের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। তাই যেসব কৃষক ধান কাটতে শ্রমিক সংকটে ভুগছেন তাদের তালিকা করে সে অনুযায়ী সবার ধান কেটে দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

এছাড়া করোনা মহামারীর মধ্যে হাওরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বোরো ধান ঘরে তুলতে কৃষকদের সহায়তা করতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনুরোধ জানিয়েছে সরকার। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের যেসব অঞ্চলে বোরো ধান আহরণের ক্ষেত্রে কৃষকদের সহায়তা করা প্রয়োজন সেসব এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের কৃষকদের প্রয়োজনীয় সাহায্য করার অনুরোধ করা হয়। প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের অন্যান্য শিক্ষক এবং দায়িত্ববোধ সম্পন্ন ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত (স্কাউটস, রোভার স্কাউটস ইত্যাদি) শিক্ষার্থীদের নিয়ে তাদের প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন এলাকার কৃষকদের সহায়তায় এগিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেছে সরকার। শিক্ষার্থীদের উচিৎ এই দুর্যোগে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানো।
মূলত দেশের কোনও অঞ্চলেই ধান কাটার জন্য শ্রমিকের অভাব নেই। কিন্তু দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে আসা শ্রমিকরা অন্য এলকার স্থানীয় শ্রমিকদের তুলনায় কম মজুরিতে ধান কেটে দেন বলে তাদের কদর বেশি। এ বছর কারোনার প্রভাবে দেশের বিভিন্ন জেলা লকডাউন থাকায় উত্তরাঞ্চলের শ্রমিকরা দেশের হাওর অঞ্চলের ধান কাটতে আসতে পারছেন না। এতে এই সংকট তৈরি হয়েছে। তবে এসব জেলা থেকে যাতে শ্রমিকরা ধান কাটার জন্য হাওর অঞ্চলের জেলাগুলোয় অবাধে যাতায়াত করতে পারেন সরকারের পক্ষ থেকে সেই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি খুব দ্রুত ধান কাটা নিয়ে সমস্যার সমাধান হবে।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018-20
Design & Developed BY Md Taher