শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামে সপ্তাহের ব্যবধানে ফের বস্তিতে আগুন

চট্টগ্রামে সপ্তাহের ব্যবধানে ফের বস্তিতে আগুন

বি নিউজ : ঠিক এক সপ্তাহের মাথায় চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানাধীন শুলকবহর এলাকার আরও একটি বস্তি আগুনে পুড়েছে। পাশাপাশি দুই বস্তিতে পরপর এভাবে অগ্নিকান্ডের পর ‘পরিকল্পিতভাবে’ আগুন লাগানোর সন্দেহের কথা বলছেন স্থানীয়রা। ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক আজিজুল ইসলাম জানান, আজ শুক্রবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটের দিকে পাঁচলাইশ থানার শুলকবহর মির্জাপোল এলাকার ডেকোরেশন গলির হুমায়ন কলোনিতে আগুন লাগে। চারটি ফায়ার স্টেশনের ১৪টি গাড়ি আধাঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু তার আগেই হুমায়ন কলোনির ৬০টির মত কাঁচা ঘর এবং পাশের বাবু কলোনির চারটি ঘর পুড়ে যায়। কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হল, তা তদন্ত ছাড়া বলতে রাজি নয় ফায়ার সার্ভিস। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোনো তথ্য সেখানে পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে দেখা যায়, সংকীর্ণ ওই গলির বাঁ পাশের হুমায়ন কলোনি, যেখানেে আজ শুক্রবার আগুন লেগেছে। রাস্তার উল্টো পাশের বাবু কলোনির শতাধিক ঘর গত ২৫ জানুয়ারির আগুনে পুড়ে যায়। সেদিনও ছিল শুক্রবার এবং সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সেখানে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল। হুমায়ন আর বাবু দুই ভাই। পারিবারিক জমিতে ঘরে তুলে তারা ভাড়া দিয়েছেন। এ কারণে বস্তি দুটো তাদের নামেই পরিচিত। মূলত নিম্ন আয়ের মানুষ এক কক্ষের এসব বাসায় ভাড়া থাকেন। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জমি নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ আছে। জমির বিরোধ আছে স্থানীয়দের সঙ্গেও। হুমায়ন কলোনির বাসিন্দা মনি বেগম বলেন, নয় বছর ধরে তিনি সেখানে আছেন। প্রতি মাসে তাকে সাড়ে তিন হাজার টাকা করে ভাড়া দিতে হয়। সকালে হঠাৎ দেখি কলোনির মাঝখান থেকে আগুন জ্বলছে। দৌড়ে বেরিয়ে জীবন রক্ষা করেছি। ঘরের জিনিস কিছু বের করতে পারিনি। গৃহকর্মী কুলসুম বেরিয়েছিলেন কাজে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। কিছু দূর যাওয়ার পর ধোঁয়া দেখে ফিরে এলেও ঘর থেকে কিছু উদ্ধার করতে পারেননি। তিনি বলেন, গত শুক্রবার যে সময়ে, আজকেও একই সময়ে আগুন লাগল। এটা ষড়যন্ত্র। না হলে একই সময়ে কীভাবে আগুন লাগে? হুমায়ন আর বাবুর পাশাপাশি পিয়ার আহমেদ নামে আরেক ব্যক্তির কিছু জমি আছে ওই বস্তির জায়গায়। পিয়ার আহমেদের নাতি আবদুল আজিজ অভিযোগ করেন, বছর খানেক আগে বাবু কলোনির মালিক শাহ নেওয়াজ বাবু গ্যাস ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করে। পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে তাদের হুমকিও দেওয়া হয়েছে। বস্তির জমি নিয়ে মামলা আছে। ভাইয়ে ভাইয়ে জমি নিয়ে বিরোধ আছে। আমাদের সঙ্গেও জমি নিয়ে ঝামেলা আছে। ওরা এটা পরিকল্পিতভাবে হতে পারে। এ বিষয়ে শুলকবহর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোরশেদ আলম বলেন, গত সপ্তাহের মত একই সময়ে আগুন লাগাটা ‘রহস্যজনক’। গত সপ্তাহের যাদের ঘর পুড়েছে তাদের অনেকে এখনো খোলা আকাশের নিচে রাত কাটাচ্ছে। এর মধ্যে আবারো আগুন লাগার পেছনে ষড়যন্ত্র থাকতে পারে। জমি নিয়ে মামলা আছে। দুটো ঘটনাই তদন্তের দাবি করছি। অভিযোগ আর স্থানীয়দের সন্দেহের বিষয়ে শাহনেওয়াজ বাবু বা তার ভাই হুমায়নের বক্তব্য তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 bnewsbd24.Com
Design & Developed BY Md Taher