সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন

২০ ভাগ কেন্দ্রে ভোট কারচুপির অভিযোগ বিএনপির

২০ ভাগ কেন্দ্রে ভোট কারচুপির অভিযোগ বিএনপির

বি নিউজ : সারাদেশে ২০ ভাগ কেন্দ্রে ভোট কারচুপি হয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। আজ রোববার দুপুরে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বিভিন্ন জায়গা থেকে ভোট কারচুপির তথ্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, সকালে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও কোনো কেন্দ্রে আমাদের এজেন্টদের ঢুকতে দেয়নি আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। আমার হাতে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী সকাল ১১টা পর্যন্ত ২০ শতাংশের মতো, মোট যে ভোটকেন্দ্র আছে তার ২০ ভাগ ভোট অলরেডি কেটে ফেলা হয়েছে, নিয়ে গেছে। তারপরও মানুষ ভোটকেন্দ্রে যাওয়ায় তাদের প্রশংসা করেন রিজভী। আশার কথা হচ্ছে- এত কিছুর পরও মানুষ ভোটকেন্দ্রে যাচ্ছে। তারা মার খাচ্ছে, রক্তাক্ত হচ্ছে। তারপরও তারা অনেক জায়গায় প্রতিহত করার চেষ্টা করছে। ধানের শীষের সমর্থক, নেতাকর্মীরা প্রতিহত করার চেষ্টা করছে। আমি বলতে চাই শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে ভোট বলুন, নির্বাচন বলুন সেটা আনন্দদায়ক হবে না। আমরা যখন স্থানীয় সরকার নির্বাচন দেখেছি যেভাবে ফ্যাসিবাদের আত্মপ্রকাশ ভয়াবহ রুপ নিচ্ছে, সেখানে যতটুকু গণতন্ত্রের স্পেস পাচ্ছি সেটা আমরা ব্যবহার করছি। কারণ ফ্যাসিবাদ মানেই তো হচ্ছে রক্তঝরা একটি মতবাদ বা ইমেজ। তারপরও আমরা জনগণের শক্তি নিয়ে এগুচ্ছি, জনগণের শক্তি নিয়ে এগিয়ে যাব। রিজভী অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীদের কারণে নোয়াখালী-৫ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী মওদুদ আহমদ বেলা ১২টা পর্যন্ত ভোট দিতে যেতে পারেননি। ভোলা-৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী দলের ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ নিজের লালমোহনের বাসায় অবরুদ্ধ হয়ে ছিলেন। ঢাকা, কুমিল্লা, চট্রগ্রাম, ফরিদপুর, কুষ্টিয়াসহ বিভিন্ন আসনে আওয়ামী লীগের ভোট সন্ত্রাস, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর তা-ব, এজেন্টদের ঢুকতে না দেওয়া কিংবা বের করে দেওয়ার তথ্য তুলে ধরেন তিনি। ক্ষমতাসীন দল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় দেশজুড়ে ভোটের ফল নিজেদের অনুকূলে নেওয়ার চেষ্টা করছে অভিযোগ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, এ নির্বাচন যে কত মর্মস্পর্শী, মর্মঘাতী, কত মানুষের জীবনশঙ্কার কারণ হতে পারে, সেটির নমুনা আপনারা দেখছেন। সরকারদলীয়দের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে তো জেলখানার পর জেলখানা লাল দেয়াল, লাল বিল্ডিং ভরে ফেলেছেন বিএনপির নেতাকর্মীতে। তার পরেও ১৮ প্রার্থী। তাঁরা প্রার্থী হয়েও প্রতিযোগিতা করতে পারেনি, স্থগিত করা হয়েছে। এই যে অনাচার, এই যে নির্বাচন কমিশন, আদালত দিয়ে বিএনপির ওপরে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ওপরে, ২০ দলীয় ঐক্যজোটের ওপরে যে আঘাত আনা হয়েছে নির্বাচনে, তার পরও তারা ক্ষান্ত হয়নি, বলেন রিজভী আহমেদ। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 bnewsbd24.Com
Design & Developed BY Md Taher